একটি চোরাই মোটরসাইকেলের ৪টি রেজিস্ট্রেশন নম্বর!

Filed under: সব সংবাদ |

মাদারীপুর সদর উপজেলার কুনিয়া বাজার থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা একটি পালসার মোটরসাইকেলের চারটি রেজিস্ট্রেশন নম্বর পেয়েছের পুলিশের তদন্ত কর্মকর্তা। গত বছর উদ্ধার করা মোটরসাইকেলটির ব্যাপারে তদন্ত করতে গিয়ে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য পান মাদারীপুর গোয়েন্দা পুলিশের এসআই মোবারক হোসেন।

মাদারীপুর কোর্ট পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ২৩ অক্টোবর কুনিয়া থেকে জব্দকৃত মোটরসাইকেলটির চারটি ভিন্ন ভিন্ন রেজিস্ট্রেশন নম্বর পাওয়া গেছে। বাংলাদেশ রোড এন্ড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) থেকে নেয়া এই রেজিস্ট্রেশন নম্বরগুলো হলো-চাপাই নবাবগঞ্জ ল-১১-০৩২০, ঝিনাইদহ-ল-১১-১১১০, যশোর-ল-১১-১৩৪৪ ও যশোর-ল-১১-১৮৭২। উদ্ধারকালে গাড়ির যে চেসিস নম্বর পাওয়া যায় তা হলে MD2DHDHZZSCH80274, ইঞ্জিন নম্বর DHGBPH20578, কিন্তু আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান উত্তরা মোটর্স ঢাকার তথ্য মতে, চেসিস নম্বর MD2DHDHZZPCH80274, ইঞ্জিন নম্বর DHGBPH20578, এই অনুযায়ী গাড়ির চেসিস নম্বরের একটি ডিজিট পরিবর্তন করা হয়েছে।

মাদারীপুর গোয়েন্দা পুলিশের এসআই মোবারক হোসেন জানান, তদন্ত করতে গিয়ে একই চেসিস নম্বরে চারটি রেজিস্ট্রেশনের খোঁজ পেয়ে বিষ্মিত হয়েছি। এই মোটরসাইকেলের ইঞ্জিন ও চেসিস পাঞ্চ করা অর্থাৎ নম্বর ঘসে-মেজে পরিবর্তন করা। বিআরটিএর পক্ষ থেকে একই জেলায় অর্থাৎ যশোরেই দুটি রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে। এই মোটরসাইকেলটি জব্দ করার পর মাদারীপুর সদর মডেল থানায় রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, বিআরটিএ’র এক শ্রেণীর অসাধু কর্মকর্তাদের যোগসাজশে এই ধরণের রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হয়। তারা অর্থনৈতিক লেন-দেনের মাধ্যমে চোরাই গাড়ির রেজিস্ট্রেশন করে থাকে বলে দীর্ঘদিনের অভিযোগ রয়েছে।